ভারতের মণিপুরে ভয়াবহ বাস দুর্ঘটনার শিকার হয়েছে শিক্ষার্থীবাহী একটি স্কুলবাস। দুর্ঘটনায় অন্তত ১৫ জন শিক্ষার্থীসহ বেশ কয়েকজনের নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছে সংবাদ সংস্থা এএনআই।

বুধবার দুপুরে উত্তর-পূর্ব ভারতের এই রাজ্যটির নোনি জেলায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, থৌবাল জেলার ইয়ারিপকের ‘থাম্বলনু হায়ার সেকেন্ডারি স্কুলের’ হায়ার সেকেন্ডারি লেভেলের প্রায় ৩৬ জন ছাত্রছাত্রী ও স্টাফদের নিয়ে ওই বাসটি বাৎসরিক শিক্ষামূলক ভ্রমণে বেরিয়েছিল। বাসটি রাজ্যের খৌপুম এলাকার দিকে যাচ্ছিল।

এ সময় মণিপুরের নোনি জেলায় বিষ্ণুপুর খউপম রাস্তার ওপর লংসাই টুবুং গ্রামের কাছাকাছি বাঁকের মুখে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায় বাসটি। পরে ঢালু খাদ গড়িয়ে বাসটি দুমড়ে মুচড়ে যায়। স্থানীয় মানুষজনই প্রাথমিকভাবে দুর্ঘটনাস্থলে উদ্ধারের কাজ শুরু করেন।

ভারতের

পরে পুলিশ ও বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধারকাজে হাত লাগায়। জখমদের মধ্যেও অনেকের আঘাত গুরুতর। কয়েকজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয় একাধিক সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নোনি জেলা প্রশাসনের সূত্রে জানানো হয়েছে, মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে। ইতোমধ্যেই মণিপুরের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ দফতরের মন্ত্রী ড. সপম রঞ্জন সিং দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন। তিনি বলেন, ককিভাবে দুর্ঘটনাটি হলো তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এদিকে মণিপুরের মুখ্যমন্ত্রী এন বীরেন সিংহ টুইট করে জানিয়েছেন, দুর্ঘটনার খবরে অত্যন্ত মর্মাহত। ওল্ড কাছার রোডে শিক্ষার্থীদের নিয়ে যাচ্ছিল বাসটি। তখনই বাসটি দুর্ঘটনার মধ্যে পড়ে। এসডিআরএফ, মেডিক্যাল টিম, এমএলএ উদ্ধারে নেমেছে। বাসের সবার সুরক্ষার জন্য প্রার্থনা করছি।

সূত্রঃ নয়াদিগন্ত